সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

success-in-life-obstacles.jpg

শিক্ষা গ্রহণ সফলতা অর্জনে কিছু করণীয় বিষয়

চলার পথে সমালোচকদের বাঁধা মনে করবেন না। এই সমাজে প্রতিটি পদে পদে এমন সব ব্যক্তি পাবেন যারা আপনার কাজের প্রসংশা না করে শুধুই সমালোচনা করবে। সমালোচনাগুলোর সত্যতা খুঁজে দেখুন।

সফলতা কখনো প্লেটে সাজানো সবজির মত ধরা দিবে না। এর জন্য আপনাকে বিভিন্নভাবে চেষ্টা করে যেতে হবে। সফলতার জন্য আপনাকে অনেকবার বিফলতার মুখও দেখতে হতে পারে। কিন্তু বিফল হলেই ভয় পেয়ে পরাজয় মেনে নেয়া যাবে না। সফলতার জন্য নিরন্তর পরিশ্রম করতে হবে। এর জন্য প্রথমে প্রয়োজন লক্ষ্য স্থির করা। আমাদের কাজের ভাল ও মন্দ দুটি দিকই আছে। তাই মনের ভিতর ভাল কাজের স্বপ্ন গেঁথে বুকে সাহস নিয়ে সফলতার জন্য দ্রুত সামনে অগ্রসর হতে হবে। সফলতা লাভের জন্য করণীয় গুরুত্বপূর্ণ বিষয় যা আপনাকে মনে রাখতেই হবে।

লক্ষ্য স্থির করুন:
কাজে সফল হতে হলে প্রথমে লক্ষ্য স্থির করতে হবে। অতঃপর সেই লক্ষ্যে পৌঁছাতে হলে কোন পথে কিভাবে কাজ করতে হবে তা ঠিক করতে হবে। যদি কারো লক্ষ্য নির্দিষ্ট থাকে তবে তার পক্ষে সফলতা অর্জন করা কঠিন হবে না।

উন্নতির পথ লক্ষ্য রাখবেন:
যখন আপনি লক্ষ্য স্থির করলেন তখন আপনার কাজ হবে আপনি লক্ষ্য অনুযায়ী কতটা অগ্রসর হতে পেরেছেন তার একটি হিসেব রাখা। অর্থাৎ আপনার কোন কোন লক্ষ্য অর্জিত হল তা একটি সুন্দর খাতায় বা ডায়রীতে লিখে রাখবেন। কাজের উন্নতি অবনতির দিকে খেয়াল রেখে চললে আপনি সফল হতে পারবেন। কারন আপনি এখন জানেন আপনাকে কিভাবে কাজে অগ্রসর হতে হবে।

ব্যর্থতার ভয় পাবেন না:
যে কোন কাজে দুটি বিষয় থাকে। একটি সফলতা অন্যটি ব্যর্থতা। একবার কাজে ব্যর্থ হওয়ার অর্থ এই নয় যে আপনি বার বার সেই কাজে ব্যর্থ হবেন। ব্যর্থতার ভয় আপনাকে বার বার পিছনে টেনে ধরবে। যাইহোক যদি আপনি ব্যর্থতার ভয়কে জয় করে এগিয়ে যান দেখবেন একদিন সফলতা আপনাকে ধরা দিবেই।

সমস্যা দূরীকরণ:
সফলতার পথে অনেক সমস্যা আসবে। এসব সমস্যাকে প্রথমে সনাক্ত করতে হবে। যদি পরামর্শের প্রযোজন হয় তবে অভিজ্ঞদের শরণাপন্ন হতে হবে। সমস্যার মূল খুঁজে বের করে সেগুলোকে দূর করার জন্য সেগুলোর বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে।

সমালোচনা থেকে শিক্ষা গ্রহণ করুন:
চলার পথে সমালোচকদের বাঁধা মনে করবেন না। এই সমাজে প্রতিটি পদে পদে এমন সব ব্যক্তি পাবেন যারা আপনার কাজের প্রসংশা না করে শুধুই সমালোচনা করবে। সমালোচনাগুলোর সত্যতা খুঁজে দেখুন। অনেকেই আছে অনর্থক সমালোচনা করবে। আমার এক বন্ধু কবিতা লিখত। তার কবিতা লেখায় আমি সর্বদা উৎসাহ দিতাম। একদিন সে বলল কবিতা লেখা ছেড়ে দিবে। কারণ অনেকেই তার কবিতা নিয়ে হাসাহাসি করে, তিরষ্কার করে! আমি তাকে শুধু বলছিলাম দেখ যারা তিরষ্কার করে তারা কিন্তু কোন কবিতাই লেখেনি। সুতরাং তাদের থেকে কিছুটা হলেও তো এগিয়ে আছিস। আমার এই একটা কথায় সে আবার কবিতা লিখছে। এর কয়েকদিন পর সমালোচকদের সমালোচনার জবাব দিয়েই সে একটা সুন্দর কবিতা লিখে আমাকে শোনাতে আসছে। তার কবিতা নিয়ে আমি এখন কোন মতামত দিচ্ছি না। তবে সমালোচনার ফাঁদ থেকে বেরিয়ে এসে সে যে আবার কবিতা লিখছে এতেই আমি অনেক খুশি। সমালোচনাগুলো যদি আপনার উপকারের জন্য হয় তবে তা থেকে শিক্ষা নিন। যদি কোন ভুল থাকে তবে নিজকে সংশোধন করে নিবেন।

যদি আপনি এই কাজগুলো মনে রেখে কঠিন কাজেও হাত দেন আমার মনে হয় কোন কিছুই আপনার সফলতার পথে বাঁধা হতে পারবেনা। আমার বিশ্বাস এই কথাগুলো আপনার জীবনের প্রতিটি পদক্ষেপে নতুন মাত্রা যোগ করতে সক্ষম হবে।

-
লেখক: ইন্টার্ণশীপ শিক্ষার্থী, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু)।


এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

success, life, obstacles, criticism, learning, practices, aim, forward