সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

birth-certificate-bangladesh.jpg

নাগরিক অধিকার ঘরে বসেই করুন জন্ম নিবন্ধন

সদ্যজাত শিশু জন্মের ৪৫ দিনের মধ্যে জন্ম নিবন্ধন করা বাধ্যতামূলক। কোন শিশুর জন্ম নিবন্ধন ২ বছরের মধ্যে সম্পন্ন না করলে পিতা-মাতার কাছ থেকে জরিমানা আদায়ের বিধান রয়েছে।

জন্মের পর সরকারি খাতায় প্রথম নাম লেখানোকেই জন্ম নিবন্ধন বলা হয়। একটি শিশুর জন্ম নিজ দেশকে, বিশ্বকে আইনগতভাবে জানান দেয়ার একমাত্র পথ হচ্ছে জন্ম নিবন্ধন করা। এটি শিশু ও বয়স্কদের অধিকার।

সরকার জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন আইন ২০০৪ নতুনভাবে প্রণয়ন করে। জাতীয় পরিকল্পনা প্রণয়ন, সুশাসন প্রতিষ্ঠা, শিশু অধিকার নিশ্চিত করতে ২০০৬ সালের ৩ জুলাই থেকে আইনটি কার্যকর হয়েছে।

জন্ম নিবন্ধনের গুরুত্ব: ১৬ টি মৌলিক সেবা নিশ্চিত করতে প্রয়োজন হয় জন্মসনদ। বয়স প্রমাণের জন্য জন্মসনদ বা তার ফটোকপি লাগে। এই সেবাগুলো হচ্ছে: 

  • পাসপোর্ট ইস্যু, বিবাহ নিবন্ধন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি,
  • সরকারি, বেসরকারি ও স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ,
  • ড্রাইভিং লাইসেন্স ইস্যু, ট্রেড লাইসেন্স, জমি রেজিস্ট্রেশন,
  • ভোটার তালিকা,  জাতীয় পরিচয় ‍প্রাপ্তি,
  • ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলা, আমদানি রপ্তানি বা উভয় লাইসেন্স,
  • গ্যাস, পানি, টেলিফোন ও বিদ্যুৎ সংযোগ প্রাপ্তি,
  • ঠিকাদারী লাইসেন্স প্রাপ্তি, বাড়ির নকশা অনুমোদন, গাড়ি রেজিস্ট্রেশন এর ক্ষেত্রে জন্মসনদ লাগে।

বাল্যবিবাহ ও শিশুশ্রম বন্ধ করতে জন্মসনদের ব্যাপক অবদান রয়েছে।

জন্ম নিবন্ধনের সময়: সদ্যজাত শিশু জন্মের ৪৫ দিনের মধ্যে জন্ম নিবন্ধন করা বাধ্যতামূলক। কোন শিশুর জন্ম নিবন্ধন ২ বছরের মধ্যে সম্পন্ন না করলে পিতা-মাতার কাছ থেকে জরিমানা আদায়ের বিধান রয়েছে।

২০১০ সালের জুন মাসের পর থেকে জন্ম নিবন্ধন করতে ফি জমা দিতে হচ্ছে। ফি নিম্নোক্তভাবে প্রদেয়:

  • শিশুর বয়স ২ বছর পর্যন্ত: সম্পূর্ণ ফ্রি।
  • শিশুর বয়স যখন ২ বছর থেকে বেশি: প্রতি বছরের জন্য ৫ টাকা (ইউনিয়ন পরিষদ ও পৌরসভা) অথবা, ১০ টাকা (সিটি কর্পোরেশন ও ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড এলাকার জন্য)।
  • বয়স যখন ১৮ এর অধিক: ৫০ টাকা।

যেখানে করা যাবে: নিম্নের যেকোন স্থানে গিয়ে জন্ম নিবন্ধন করা যায়।

  • ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়,
  • পৌরসভা,
  • সিটি কর্পোরেশন অফিস,
  • সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন ওয়ার্ড কমিশনারের অফিস।

আবেদন করার নিয়ম: সাধারণত হাতে লিখে ও অনলাইনে জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করা যায়। নিচে দুটি পদ্ধতিই উল্লেখ করা হল:

  • হাতে ফরম পূরণ: জন্ম নিবন্ধনের নির্ধারিত ফরমটি হাতে লিখে বা ছাপিয়ে সংশ্লিষ্ট দফতরে জমাদানের মাধ্যমে আবেদন করতে হয়। ফরমটি পেতে এই লিংকটিতে যান। ফরমটি প্রিন্ট করে প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান করে জমা দিতে হবে।
  • অনলাইনের মাধ্যমে: প্রযুক্তির এই সময়ে অনলাইনে খুব সহজেই আবেদন করতে পারবেন। আবেদন করতে এই লিংকে যাবেন। প্রয়োজনীয় তথ্য বাংলা (ইউনিকোড) ও পরে ইংরেজিতে পূরণ করে সংরক্ষণ বাটনে ক্লিক করলে সংশ্লিষ্ট কার্যালয়ে ফরমটি চলে যাবে। আবেদন পত্রটি প্রিন্ট বাটনে ক্লিক করে মুদ্রিত কপি নিবেন। ১৫ দিনের মধ্যে প্রয়োজনীয় প্রত্যয়ন সংগ্রহ করে নিবন্ধক কার্যালয়ে যাবেন।

জন্ম নিবন্ধন সনদ আপনার ও আপনার শিশুর নাগরিক অধিকার। তাছাড়া এটি না থাকলে ব্যক্তি জীবনে নানা ধরনের ঝামেলা হয়ে থাকে। তাই আজই আপনার ও আপনার শিশুর জন্ম নিবন্ধন করুন।

বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন: জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন প্রকল্প


এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

জন্ম-নিবন্ধন, নাগরিক, অধিকার, শিশু, বয়স্ক, বাধ্যতামূলক, সরকার, প্রয়োজনীয়তা, সচেতনতা